শিরোনাম:
●   স্বামী ঘর ছেড়ে পালানো গৃহবধুকে নিয়ে মা উপস্থিত হলেন থানায় ●   ভারতের প্রথম জাতি-ধর্মহীন নাগরিকের স্বীকৃতি পেল স্নেহা ●   সাবেক এমপি বদির ৩ ভাই, ভাগিনা, ফুফাতো ভাইসহ ১০২ ইয়াবা কারবারীর আত্মসমর্পণ ●   লামায় চেয়ারম্যান প্রার্থী ইসমাইল এর জানাজায় হাজা‌রো মানুষের ঢল ●   আত্রাইয়ে প্রচারনায় ব্যস্ত এবাদুর রহমান ●   গাইবান্ধায় রামসাগর এক্সপ্রেসে চালুর দাবিতে রেলওয়ে ষ্টেশনে অবস্থান কর্মসূচী ●   চলনবিলে ধান ও চালের বাজারে অসংগতির ফলে ব্যবসায় স্থবিরতা : ৭০ শতাংশ মিল চাতাল বন্ধ ●   খাগড়াছড়িতে আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে মানববন্ধন ●   আমেরিকান নাগরিকদের পাকিস্থান থেকে দেশে ফেরার নির্দেশ দিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন ●   ভারত সরকার পাকিস্থানের বিরুদ্ধে একশন শুরু করে দিয়েছে ●   আখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে পাকশীতে ৮৯ তম ওয়াজ মাহফিল সমপন্ন ●   নাইক্ষ্যংছ‌ড়ি‌তে ১১ বি‌জি‌বি’র অ‌ভিযা‌নে ৪ লক্ষ ৪০‌ হাজার ইয়াবা উদ্ধার ●   ঝিনাইদহে ফেনসিডিলসহ ভুয়া সাংবাদিক গ্রেফতার ●   খাটের নিচে পাতিলের ভেতর শিশুর লাশ : ঘাতক পিতা পলাতক ●   স্মৃতির অতলে হারিয়ে যেতে বসেছে শহীদ মিনার ●   বান্দরবা‌নে ভয়াবহ আগুনে বসতবা‌ড়িসহ আইস ফ্যাক্ট‌রি ভস্মীভূত ●   শ্বাশুরী হত্যায় ঘাতক পুত্রবধু আটক ●   বাঘার ইউএনওর ফোন নাম্বর ক্লোন করে চাঁদা দাবি ●   লামায় ঘাতক টমটম কে‌ড়ে নিল মাদ্রাসা ছাত্রের প্রাণ ●   আলীকদমে ইট ভাটা মালিকদের রাম রাজত্ব নিরব দর্শকের ভূমিকায় স্থানীয় প্রশাসন ●   ভালোবাসা ভাগাভাগি করল হরিজন শিশুরা ●   স্বৈরাচার বিরোধী প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে গাইবান্ধায় ছাত্রফ্রন্টের মিছিল সমাবেশ ●   ঝালকাঠিতে ভালোবাসা দিবসে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ ●   মির্জাগঞ্জে আধুনিকতার ছোয়া লাগাতে চান খান মো. আবু বকর সিদ্দিকী ●   বরকলে ১টি শর্টগানসহ কার্তুজ উদ্ধার ●   আদিবাসী তরুণীকে গুলশানে ধর্ষণ ●   উপজেলা পরিষদ নির্বাচন : বান্দরবানে মাঠে নামছে আ’লীগের ৭ প্রার্থী ●   অশ্লীল ভিডিও প্রকাশের জের : শিক্ষিকার শাস্তির দাবিতে খাগড়াছড়িতে মানববন্ধন ●   বাংলাদেশে তামাক ব্যবহার কমেছে : তথ্যমন্ত্রী ●   ১টি ৮০ কেজী ওজনের বার্গার মাছের দাম ১লক্ষ ২০হাজার টাকা : ঐতিহ্যবাহী পোড়াদহ মেলা সম্পন্ন
রাঙামাটি, রবিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ৪ ফাল্গুন ১৪২৫


CHT Media24.com অবসান হোক বৈষম্যের
বৃহস্পতিবার ● ১৫ নভেম্বর ২০১৮
প্রথম পাতা » পটুয়াখালী » মির্জাগঞ্জের মানুষ প্রলয়ঙ্কারী সিডরের ভয়াবহতা আজও ভুলতে পারেনি
প্রথম পাতা » পটুয়াখালী » মির্জাগঞ্জের মানুষ প্রলয়ঙ্কারী সিডরের ভয়াবহতা আজও ভুলতে পারেনি
১৫৮ বার পঠিত
বৃহস্পতিবার ● ১৫ নভেম্বর ২০১৮
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

মির্জাগঞ্জের মানুষ প্রলয়ঙ্কারী সিডরের ভয়াবহতা আজও ভুলতে পারেনি

---হাসান আলী, পটুয়াখালী প্রতিনিধি :: প্রলয়ঙ্কারী সিডরের এগারো বছর অতিবাহিত হলেও পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জের ক্ষতিগ্রস্ত বহু পরিবার এখনও তাদের বসত ঘরে ফিরতে পারেনি। আজ থেকে ১১ বছর আগে ২০০৭ সালের ১৫ নভেম্বর এই দিনে প্রলয়ঙ্করী ঘূর্নিঝড় লন্ডভন্ড হয়ে যায় পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জের বিভিন্ন এলাকা।

মির্জাগঞ্জে সিডরের আঘাতে ১০ হাজার ঘর-বাড়ি বিধ্বস্ত এবং ১১৫ জন নারী, পুরুষ ও শিশুর প্রাণহানীসহ অনেক সম্পদের ক্ষতি হয়। আংশিক ঘর-বাড়ি বিধ্বস্ত হয় ১৪হাজার ৫শত ঘর, গবাদিপশু মারা যায় ২ হাজার ৫শত, হাঁস-মুরগি মারা যায় ১লাখ ৩০ হাজার, ফসল বিনষ্ট হয় ১১ হাজার ৯৯০ একর জমির,৭ হাজার ৯৮৭ টি পুকুরের প্রায় কোটি টাকার মাছ ভেসে যায়, এছাড়াও উপজেলার ৮০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ২৪০টি মসজিদ সম্পূর্ন বিধ্বস্ত হয়, ৩৪ কিলোমিটার পাকা সড়ক, ১৫৬ কিলোমিটার কাচাঁ সড়ক ও ৩৫ কিলোমিটার বাধঁ ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

উপজেলার মধ্যে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ দেউলী সুবিদখালী ইউনিয়ন। এই ইউনিয়নে বিধ্বস্ত হয় ১ হাজার ১৭০টি ঘর এবং মৃত্যু ঘটে ৮৫ জনের। এর মধ্যে চরখালী গ্রামে মারা যায় ৪৫ জন। ঝড়ের তীব্রতা কমে যাওয়ার পর শুরু হয় স্বজনদের খোঁজাখুজি। অন্যদিকে পায়রার ভাঙ্গনের কারনে ২০ গ্রামের মানুষ আতংকের মধ্যে দিনাতিপাত করছে।

এ এলাকার মানুষ পায়রা নদীর ভাঙ্গন রোধে শক্ত বেড়িবাঁধ নির্মানের দাবী জানান পায়রা তীরবর্তী লোকজন। সিডরের ভয়াবহতা চরখালী ও মেন্দিয়াবাদ গ্রামের মানুষেরা আজও ভুলতে পারেনি। একদিকে জলোচ্ছাসের তান্ডবে সর্বস্ব হারিয়ে তারা নিঃস্ব,অন্যদিকে আবার ঝড়ের আশঙ্কায় ক্ষতিগ্রস্থ এ পরিবারগুলো এখনও পায়রা নদীর পাড়ে বেড়ি বাঁধের ঢালে মানবেতর জীবন-যাপন করছে।

ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি মির্জাগঞ্জ উপজেলার সিডর ক্ষতিগ্রস্তরা। আকাশে মেঘ দেখলেই এখনও আতকে উঠে তারা। সব কিছু হারিয়ে তারা অনেকেই ঢাকায় গেছে কাজের সন্ধানে। সিডরে মারা যাওয়া লাশ গুলো চরখালী খান বাড়ির পুকুর পাড়ে ২৪টি কবরে ৩৩টি লাশ দাফন করা হয়। গনকবরটি এখন অযতœ-অবহেলায় পড়ে আছে। তাদের এইদিনে স্মরন করা হয় না। উপজেলার কপালভেরা গ্রামের পালোয়ান বাড়িতে একই ঘরে স্বামী-স্ত্রীসহ মারা যায় ৬জন।

মেন্দিয়াবাদ গ্রামের মাজেদা বেগম বলেন,পায়রা নদী থেকে ৪০ ফুট দুরে ছিল তার ঘর। সিডরের পর দিন ঘরের একটি খুটিও খুঁজে পায়নি সে। মাজেদা বেগমসহ এ রকম জমি না থাকা এ এলাকার ৬টি পরিবারকে থাকার জন্য রানীপুর গ্রামের ইসমাইল হাজি মেন্দিয়াবাদ গ্রামের ২০ শতাংশ জমি দান করেন। সেই থেকে এখানেই তাদের বসবাস। এর মধ্যেই মেন্দিয়াবাদ এলাকায় ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। স্বজন হারা ব্যাথা নিয়ে কাটছে তাদের জীবন। একই ভাবে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে শত শত পরিবার সবর্শ্ব হারিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে।

উপজেলা সদরস্থ সুবিদখালী হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক বাবু সুভাষ চন্দ্র শীল ওই রাতে বিদ্যালয়ের আশে পাশের লোকজনকে বিদ্যালয়ের দোতালায় তুলতে সক্ষম হলেও তিনি পাশে সুবিদখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পিছনে দুটি চাম্বল ও একটি তালগাছসহ ওই বিদ্যালয়ের ওপর উপরে পরলে তিনি ঘটনা স্থলে মারা যান এবং পরদিন সকাল নয় টারদিকে গাছ চাপা অবস্থায় তার মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

মির্জাগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ইকবাল হোসেন বলেন,সিডরে ক্ষতিগ্রস্ত যারা এখনও ঘর পাননি তাদেরকে পর্যায়ক্রমে পূর্নবাসনের ব্যবস্থা করা হবে এবং প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ বরাদ্দে আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের মাধ্যমে যাদের‘জমি আছে,ঘর নাই’ তাদের জন্য এই প্রকল্পের আওতায় উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে মোট ২৮২টি অসহায় গৃহহীন পরিবারকে টয়েলেটসহ ঘর নির্মানের কাজ চলমান আছে।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)