শিরোনাম:
●   পুলিশের অভিযানে চার ছিনতাইকারী গ্রেফতার ●   পাহাড়ে অস্ত্রধারীদের হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে বান্দরবানে রাজপথে আ’লীগ ●   গাইবান্ধায় খোলা আকাশের নিচে পাঠদান ●   সহোদর দুই ভাইকে হত্যার দায়ে ৪ জনের মৃত্যুদন্ড ●   বিশ্বনাথে ৯ জনের জামানত বাজেয়াপ্ত ●   শিক্ষকের অনৈতিক কর্মকান্ডের প্রতিবাদে ঝাঁড়ু মিছিল ●   প্রযুক্তি খাতে নারীদের অংশগ্রহণ বাড়াতে হবে : চুয়েট ভিসি ●   বাঘাইছড়িতে নিহতদের ময়না তদন্ত সম্পন্ন : মামলা হয়নি ●   মির্জাগঞ্জে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী যারা ●   আলীকদমে আবুল কালাম, শিরিনা আক্তার ও কফিল উদ্দিন নির্বাচিত ●   গাইবান্ধার ৫ উপজেলায় ২ বিদ্রোহী, ৩ আ’লীগ বিজয়ী ●   রাঙামাটিতে পার্বত্য ভূমিবিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের বৈঠক অনুষ্ঠিত ●   বিশ্বনাথে নুনু-হাবিব-জুলিয়া নির্বাচিত ●   ঝিনাইদহে ১০৭ ইটভাটার মধ্যে পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্রসহ নিবন্ধন রয়েছে ১৮ টি ●   গাবতলীতে রবিন,মুক্তা ও রেকসেনা নির্বাচিত ●   মহালছড়িতে বিমল কান্তি চাকমা,জসিম উদ্দিন ও সুইনুচিং চৌধুরী বিজয়ী ●   রাঙামাটিতে নির্বাচনকর্মীদের ওপর হামলায় ইসির নিন্দা ●   রাঙামাটিতে প্রিজাইডিং অফিসারসহ ৬ জনকে ব্রাশ ফায়ার করে হত্যা ●   রাস্তা দখল করে অটোরিক্সা ষ্টেশন ●   শিশু চুরির ৬ দিন পর লাশ উদ্ধার : আটক - ৬ ●   অপহরণের দায়ে যুবক কারাগারে : পরিবারের দাবী সাজানো নাটক ●   শিশু দিবসে গুইমারতে স্থানীয়দের চিকিৎসা সেবা দিল সেনাবাহিনী ●   আত্রাইয়ে র‌্যাব এর টহল জোরদার ●   রাউজানে অগ্নিকাণ্ডে বসতঘর ভস্মীভূত ●   রাঙামাটিসহ দেশব্যাপী বঙ্গবন্ধুর ৯৯ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত ●   রাজশাহীতে প্রতিবন্ধী ছাত্রী অপহরণের ৪ দিন পরও উদ্ধার হয়নি ●   গাইবান্ধায় জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ পালন ●   লামায় জীপ চাপায় নির্মান শ্রমিক নিহত ●   আদম বেপারীর খপ্পরে পড়ে পরিবার নিয়ে পথে পথে ঘুরছে নওগাঁর সিরাজুল ●   প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কথা বলায় ক্রীড়া সংগঠক কিরণ গ্রেফতার
রাঙামাটি, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০১৯, ৭ চৈত্র ১৪২৫


CHT Media24.com অবসান হোক বৈষম্যের
বুধবার ● ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
প্রথম পাতা » গাইবান্ধা » নাব্যতা সংকটে হুমকির মুখে চরাঞ্চলের জীব বৈচিত্র
প্রথম পাতা » গাইবান্ধা » নাব্যতা সংকটে হুমকির মুখে চরাঞ্চলের জীব বৈচিত্র
৫৭ বার পঠিত
বুধবার ● ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

নাব্যতা সংকটে হুমকির মুখে চরাঞ্চলের জীব বৈচিত্র

--- গাইবান্ধা প্রতিনিধি ::  ব্রহ্মপুত্র, তিস্তা ও যমুনা নদী বেষ্টিত গাইবান্ধা জেলা। নদী গুলোর তলানীতেও আর পানির দেখা মিলছে না। নদীর তলদেশ বালুতে ভরাট থাকায় সামান্য পানিতেই বন্যার দেখা মেলে। ব্রহ্মপুত্র, তিস্তা ও যমুনা নদী এখন পানির অভাবে শুকিয়ে মরুভূমিতে পরিণত হয়েছে। ভারতের এক তরফা পানি নিয়ন্ত্রণের কারণে নদ-নদী গুলো এখন মৃত প্রায়। চরাঞ্চলের অববাহিকায় জীব বৈচিত্র হুমকির মুখে। নদী পাড়ের জেলে আর মাঝিদের নেই আর আগের মত কর্মব্যস্ততা। থমকে গেছে ব্রহ্মপুত্র, তিস্তা ও যমুনার পাড়ের হাজারো পরিবারের উপার্জন। নদী গুলোর নাব্যতা হারিয়ে ধুঁ ধুঁ বালুচরে পরিণত হয়েছে। প্রভাব পড়ছে কৃষি, মাছ, পরিবেশ ও জীববৈচিত্রের ওপর। পানি শূন্য নদ-নদীতে মাছ ধরতে না পেরে জেলেরা পড়েছেন নিদারুণ কষ্টে। নদ-নদী গুলোর এ বৈরী আচরণে অনেক জেলে পরিবার তাদের বাপ-দাদার পেশা ছেড়ে জীবন-জীবিকার তাগিদে চলে যাচ্ছেন অন্য পেশায়। আর প্রকৃতি হারাচ্ছে তার আপন সৌন্দর্য। উপার্জনের পথ বন্ধ হয়ে পড়ায় নদী গুলোতে দিনভর মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করা জেলেরা আজ কর্মহীন হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন।
নদ-নদী গুলোতে পানি না থাকায় বর্তমানে হেঁটেই নদী গুলো পারি দেওয়া যায়, তাই খেয়া ঘাটের মাঝিদের আর নৌকা বাইতে হয় না। এ কারণে বেকার ও কর্মহীন হয়ে পড়েছেন তারা। বালু চরে বেঁধে রাখা নৌকা কেউ পেশা ছেড়ে অন্য পেশায় গেলেও পানির অভাবে শুকিয়ে মরে যাচ্ছে গাছপালা ও বিভিন্ন প্রজাতির পাখিও চলে গেছে অন্যত্র। নদীর বুকে জেগে ওঠা চরের বালুতে ভুট্টা, আলুসহ বিভিন্ন সবজি চাষাবাদ হলেও সেচের অভাবে তা মরে যাচ্ছে। অধিক পরিশ্রম করে প্রতিদিন সেচ দিয়ে কৃষক চাষাবাদ করছেন। তবে আশানুরূপ ফলন না পাওয়ায় প্রতিবছরই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন চাষিরা।
জেলে সুশিল চন্দ্র জানান, স্ত্রী ও তিন ছেলে-মেয়ে নিয়ে তার সংসার চলে নদীতে মাছ ধরে। দিনভর মাছ ধরে ৪/৫শ টাকা আয় হলেও এখন পানি কম থাকায় মাছ কম তাই আয়ও কম। বালাসীঘাটের নৌকার মাঝি রফিকুল ইসলাম জানান, বর্ষাকালে খেয়া পাড়ে ও জেলেদের নৌকা ভাড়া দিয়ে দৈনিক ৫/৬ শত টাকা আয় হতো। কিন্তু এখন পানি শুন্যতায় নৌকাও চলে না। চরাঞ্চলের কৃষক মজিবর রহমান বলেন, বর্ষাকালে প্রচুর পানিতে সৃষ্ট বন্যায় ফসলহানীসহ ঘরবাড়ি হারা হয় এ অঞ্চলের মানুষ। আবার শুষ্ক মৌসুমে ফসল রক্ষায় পানির প্রয়োজন হলেও নদীতে পানি নাই ফলে শুষ্ক মৌসুমেও পানির অভাবে ফসল নষ্ট হচ্ছে।
জীব বৈচিত্র টিকিয়ে রাখতে নদ-নদী গুলো শাসন করে জনগণের কল্যাণে সরকারকে উদ্যোগ নিতে হবে। নচেৎ নদী পাড়ের মানুষ দেশের উন্নয়নের বোঝা হয়েই থাকবে। পানি প্রবাহ সচল ও নদী শাসন হলে নদী তীরের জমিতে ফসলের বিপ্লব ঘটবে ও জীববৈচিত্র রক্ষা পাবে বলে মনে করছেন সচেতন মহল।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)