শিরোনাম:
●   ৫ হাজার টাকার জন্য ভাইয়ের হাতে ভাই খুন ●   মহালছড়িতে স্বেচ্ছাসেবকলীগ এর ২৭ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন ●   অসমাপ্ত সংস্কার কাজে অবর্ণনীয় ভোগান্তি ●   ঝালকাঠিতে কর্মহীনদের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ ●   গাইবান্ধায় ১ লাখ ২৮ হাজার হেক্টর জমিতে আমন চারা রোপনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ ●   প্রেমিকের হাত ধরে উধাও দুই সন্তানের জননী ●   কুষ্টিয়ার জগতি রেলস্টেশনটি ভূমিখেকোদের দখলে ●   নোয়াখালী বিভাগের দাবীতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর খোলা চিঠি ●   অনেকেই এখন অনাহারে দিন কাটাচ্ছে, মানুষকে সরকার নিয়তির উপর ছেড়ে দিয়েছে ●   ঘোড়াঘাটে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ বিতরণ ●   ক্রীড়া সাংবাদিক রানা’র স্ত্রী বিথী আর নেই ●   দলীয় ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা সুমনের চাউল বিক্রয় নাটক : আটক-১ ●   ৫০৬ তম দিন করোনা ভাইরাস আপডেট : মৃত্যু ২৪৭ জন ●   আলীকদমে বিধিনিষেধ অমান্য করায় ১৪ জনকে জরিমানা ●   বিশ্বনাথে স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করায় অর্থদণ্ড ●   ব্রহ্মপুত্রের ব্যাপক ভাঙন : বসতবাড়ি ও ফসলী জমি বিলীন ●   আত্রাইয়ে ক্রেতাশূন্য বাজারে অলস সময় কাটছে দোকানিদের ●   ঝিনাইদহে ঢিলেঢালা ভাবে চলছে কঠোর লকডাউন ●   লামায় কঠোর লকডাউনের ৩য় দিন ●   বাঙ্গালহালিয়া পুলিশ ফাঁড়ী পরিদর্শনে পুলিশ সুপার ●   নিখোঁজের ৩ দিনপর কোম্পানীগঞ্জ থেকে কিশোর উদ্ধার ●   রাউজানে লোকালয়ে ক্ষুধার্ত বানর ●   অযত্নে অবহেলায় পড়ে আছে ‘রাজ-রাজেশ্বরী মন্দির’ ●   চুরির টাকা লাখে ২৫ হাজার কমিশন দিতে হয় রায়হান মেস্বারকে ●   মিরসরাই পৌরসভার কাউন্সিলারের করোনায় মৃত্যু ●   রাঙামাটিতে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির মাস ব্যাপী করোনা হেল্প ডেস্কের কার্যক্রম শুরু ●   জননেতা সাইফুল হক এর রাজনৈতিক জীবন নিয়ে একান্ত সাক্ষাৎকার ●   নিখোঁজের একদিন পর স্কুল ছাত্রের লাশ উদ্ধার ●   নজিরবিহীন কর্তৃত্ববাদী শাসন চলছে দেশে : সাইফুল হক (শেষ পর্ব) ●   গৃহকর্মী শিশুকে নির্যাতনের মামলায় বান্দরবানে মানবাধিকার নেত্রী গ্রেপ্তার
রাঙামাটি, বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮


CHT Media24.com অবসান হোক বৈষম্যের
রবিবার ● ২৭ জুন ২০২১
প্রথম পাতা » কৃষি » গাছের আম বাগানেই হচ্ছে নষ্ট
প্রথম পাতা » কৃষি » গাছের আম বাগানেই হচ্ছে নষ্ট
১০০ বার পঠিত
রবিবার ● ২৭ জুন ২০২১
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

গাছের আম বাগানেই হচ্ছে নষ্ট

ছবি : সংবাদ সংক্রান্ত-জাহিদুর রহেমান তারিক।
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি :: ঝিনাইদহের আম চাষিদের ঘরে ঘরে এখন কান্না। লকডাউনের কারণে বাজার পড়ে যাওয়া ও যানবাহনের অভাবে বাগানেই আম পচে যাচ্ছে। করোনাকালীন সময় পুলিশ ও প্রশাসনের বাধায় আম বাজারে তুলতে পারছে না চাষিরা। ফলে ব্যাংক ও বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋন নিয়ে আম চাষ করায় চাষিদের মাথায় হাত পড়েছে। বর্তমান আমের যে বাজার তাতে উৎপাদন খরচ উঠছে না। ঝিনাইদহ সদর উপজেলার গান্না ইউনিয়নের কাশিমনগর গ্রামের বুলবুল আহম্মেদ বাপ্পি ঋন নিয়ে ৬ বিঘা জমিতে আম্রপালি জাতের আম চাষ করেছিলেন। ব্যাংকসহ বিভিন্ন এনজিওতে তার দেনা ৬ লাখ টাকা। কিন্তু তিনি এখন ভালো দামে আম বিক্রি করতে পারছেন না। দাম না পাওয়ায় গাছেই তার আম পেকে নষ্ট হচ্ছে। কি ভাবে তিনি দোনা শোধ করবেন বুঝতে পারছেন না। একই গ্রামের সন্টু জোয়ারদার বাগানে আমের ব্যাপক ক্ষতি দেখে শনিবার দুপুরে বাগানেই জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। তিনিও ঋন নিয়ে আম চাষ করেছিলেন। ওই গ্রামের সাজেজার রহমানের সবচে বেশি আম বাগান রয়েছে। তিনি কিছু আম বিক্রি করতে পারলেও এখন আর ব্যাপারীরা আম কিনতে আসছে না। কাশিমনগর গ্রামের মোদাচ্ছের, তোফাজ্জেল হোসেন ও আলীনুর রহমানও জানালেন তাদের কষ্টের কথা। আম চাষি বুলবুল আহম্মেদ বাপ্পি জানান, এখন আমের ভরা মৌসুম চলছে। অথচ বাগানে কোন ব্যাপারী আসছে না। কিছু ব্যাপারী বাগান কিনে বায়না করে গেলেও তাদের অপেক্ষায় থেকে থেকে বাগানের আম গাছেই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। সন্টু জোয়ারদার জানান, ঢাকা, নারায়নগঞ্জ, খুলনা, ফরিদপুর ও পিরোজপুর জেলার ব্যাপারীদের পদভারে এ সময় আম বাগান মুখরিত থাকতো। এখন আর কেও আম কিনতে আসছে না। তিনি জানান কিছু ব্যাপারী আসলেও তারা ৬৮০ টাকা মন আম কিনেত চাচ্ছে। এই দামে আম বিক্রি করলে তাদের লোকসান হবে বলেও ওই চাষি জানান। এলাকার বড় আম চাষি সাজেজার রহমান জানান, তাদের এলাকায় এক হাজার বিঘা জমিতে আম চাষ হয়েছে। কাশিমনগর ছাড়াও লক্ষিপুর, দহিঝুড়ি, আটলিয়া, চন্ডিপুর, শংকরপুর, জালালপুর ও মাধবপুরের আম চাষিরা করোনাকালীন সময়ে বেশি ক্ষতির মুখে পড়েছে। দক্ষিনাঞ্চলের সবচে বড় আমের মোকাম হচ্ছে জেলার কোটচাঁদপুরে। সেখান থেকে ১০ দিন আগেও দেড়শ থেকে দুইশ ট্রাক আম দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্রি হতো। এখন মাত্র ৫০ ট্রাক আমও বিক্রি হচ্ছে না। কোটচাঁদপুরের আড়ৎদার মোমিনুর রহমান জানান, বর্তমান আমের বাজার খুবই ডাউন। করোনার কারণে আম বাজারজাত ও পরিবহন করা যাচ্ছে না। শনিবার পর্যন্ত সবচে ভালে আম বিক্রি হয়েছে ১২০০ টাকা মন। আর বেশির ভাগ আম ৪০০ টাকা থেকে ৭০০ টাকা মন বিক্রি হচ্ছে। তিনি বলেন এই দামে আম বিক্রি করে চাষিদের লোকসান গুনতে হচ্ছে। কোটচাঁদপুরের বাজারে যশোর, ঝিনাইদহ, চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুর জেলার আম বিক্রির জন্য নিয়ে আসা হয়। ঝিনাইদহ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ আজগর আলী জানান, জেলায় ২২১১ হেক্টর জমিতে আম বাগান রয়েছে। এর মধ্যে সদরে ৫৮০, কালীগঞ্জে ৩৭০, কোটচাঁদপুরে ৭১০, মহেশপুরে ৫০০, শৈলকুপায় ২৫ ও হরিণাকুন্ডুতে ২৬ হেক্টর বাগান। এ সব বাগানে এ বছর ৩৩ হাজার ৫১১ মেট্রিক টন আম উৎপাদন হয়েছে। তিনি জানান, চাষিদের আম পরিবহন সহজতর করার জন্য জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে অবহিত করা হয়েছে। কিন্তু করোনার ভয়াল বিস্তার ও নানা বিধি নিষেদের কারণে চাষিরা আম বিক্রি করতে পারছে না। বাইরের ব্যাপারীরা পরিবহন সংকটের কারণে আসতে পারছে না। তাদের জন্য একটা বিহিত করা দরকার বলেও তিনি মনে করেন।



google.com, pub-4074757625375942, DIRECT, f08c47fec0942fa0

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)