শিরোনাম:
●   ফেনসিডিল সহ মাদক ব্যবসায়ী নবাব আটক ●   উদ্বোধনের আগেই দেবে গেলো আত্রাই আঞ্চলিক মহাসড়ক ●   ইচ্ছা মানব উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে সিলেটে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ ●   বন্যার্তদের মধ্যে সেনাবাহিনীর খাদ্যসামগ্রী বিতরণ ●   বিদ্যালয়ের গ্রধান শিক্ষিকা উঁকুন তোলেন শিক্ষার্থীদের দিয়ে ●   গলায় ফাঁস দিয়ে বিশ্বনাথে বৃদ্ধের আত্মহত্যা ●   স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন খাগড়াছড়িতে উৎসবের আমেজ ●   পদ্মা সেতু উদ্বোধনে কুষ্টিয়ায় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ●   পদ্মা সেতু দক্ষিণাঞ্চলের কৃষকের অর্থনীতির ইতিবাচক পরিবর্তন হবে ●   বিয়েতে রাজি না হওয়াতে রেজাউল পুত্র শাহারিয়ার মিথ্যা মামলায় এলাকা ছাড়া ●   বন্যা কবলিতদের সাহায্যার্থে বন্ধুত্বের বন্ধন মীরসরাই-২০০২ব্যাচ ●   পোড়াতে না পারায় পাথর বেঁধে সুরমা নদীতে লাশ ●   এপাড়-ওপাড় বাংলার শিক্ষার্থীদের এক মিলনক্ষেত্র রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় ●   নবীন গবেষকদের জন্য দিক-নির্দেশনামূলক ওয়েবিনার ●   পদ্মা সেতুর মাধ্যমে নিজেদের ভাগ্য উন্নয়নের স্বপ্ন দেখছে ঝালকাঠিসহ দক্ষিণাঞ্চলের কৃষিজীবী ও পর্যটন শিল্পে জড়িতরা ●   মোরেলগঞ্জে কারিগরি কলেজে এইচএসসি ফর্ম ফিলাপের নামে অতিরিক্ত অর্থ আদায় ●   হিল উইমেন্স ফেডারেশন পুনর্গঠিত : নীতি সভাপতি ও রিতা সম্পাদক ●   বহুমুখী সমস্যা ও পৃষ্ঠপোষকতার অভাবে সংকটের মুখে মৃৎ শিল্প ●   কালের স্বাক্ষী গান্ধী আশ্রম হতে পারে পর্যটন কেন্দ্র ●   আত্রাইয়ে আ’লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন ●   ঝিনাইদহে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত ●   বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সাংবাদিকদের পাশে দাঁড়ালেন শফিক চৌধুরী : বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে আরো একাধিক সংবাদ ●   মিরসরাইয়ে ৪ হাজার ৭ শত ইয়াবা সহ গ্রেফতার-৩ ●   কাউখালীতে সাত দিনের আবাসিক সাঁতার প্রশিক্ষণ শেষ হয়েছে ●   বন্যার পানিতে ডুবে বিশ্বনাথে ৬ জনের মৃত্যু : নিখোঁজ শিশু ●   বালতির পানিতে ডুবে শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু ●   আক্কেলপুরে বাইক বিস্ফোরণে চালক দগ্ধ ●   কুষ্টিয়া মৎস্য কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ১৬টি পুকুর খননের অর্থ লোপাটের অভিযোগ ●   ময়মনসিংহকে শিক্ষা নগরী থেকে প্রযুক্তি নগরীতে রূপ দিতে ১৫৩ কোটি টাকা ব্যয়ে হাইটেক পার্ক হচ্ছে : পলক ●   গাবতলীতে জেলেদের মাঝে ভ্যান গাড়ী বিতরণ
রাঙামাটি, সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ১৩ আষাঢ় ১৪২৯



CHT Media24.com অবসান হোক বৈষম্যের
সোমবার ● ২০ জুলাই ২০২০
প্রথম পাতা » চট্টগ্রাম » পপির প্রতি প্রেমের পরীক্ষা
প্রথম পাতা » চট্টগ্রাম » পপির প্রতি প্রেমের পরীক্ষা
৭৫৯ বার পঠিত
সোমবার ● ২০ জুলাই ২০২০
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

পপির প্রতি প্রেমের পরীক্ষা

---ফজলুর রহমান :: তখন ‘পপি’ এক হট নাম। এক ‘পপি’র প্রেমে মাতোয়ারা অনেকে। কৈশোর পেরুনে বয়সে মাতাল করেছিল পপি।

পড়ার টেবিলে পপি। পরীক্ষার ফাঁকে পপি। মনে পপি। মগজে পপি। গোপনে পপি। স্বপনে পপি। শয়নে পপি।

সে সময়ে উঠতে বসতে পপি। পপি ছাড়া যেন চলেই না। এই ‘পপি গাইড’ ভাইরাস হানা দেয় ঘরে ঘরে। সাদরেও নেয় অনেকে।

লাইব্রেরিওয়ালার দোকান ভরা পপি নিমিষেই শেষ হচ্ছিল। এক পপি বেঁচেই ফুলে উঠে ব্যবসা। চড়া দামে কিনে সহজ তরিকায় পাস দিতে ব্যাকুলতায় ভরা চারপাশ।

পপি’র সাইজও ছিল ‘জটিল’। না মোটা না চিকন। না লম্বা না বেঁটে। অনেকটা ‘চটি বই’ সাইজ। নকল করার জন্য যথাযথ। কাঁচি দিয়ে কেটে ফাইল বানাতেই সহজ করে তৈরি যেন!

এই পপি হাতে নিয়ে আগের বছরে আসা প্রশ্ন বাদ দেয়া যাক। এরপর কমন প্রশ্নগুলো দেখতে হবে। তারপর কেটে কেটে ফাইল করে অর্ধেক সেবন করতে পারলেই পরীক্ষা নামের রোগমুক্তি! পাস নম্বর নিশ্চিত।

এতো গেল ৫০ নম্বরের কাহিনী। পূর্ণমান তো ১০০! তাই পূর্ণ দৈর্ঘ্য কাহিনী দেখতে হলে
সাথে রাখতে হবে ৫০০ নাম্বারের প্রশ্ন ব্যাংক। যেখান থেকে ৫০টি প্রশ্ন করা হবে। মানে ৫০০-৪৫০=৫০। সতর্ক থাকলে এখানে ৫০ এ ৫০।

১০০ নাম্বারের মধ্যে ৩৩ পেলে পাস। সেখানে আবার পপি’সাথে সখ্যতা, প্রশ্নব্যাংকের সাথে ঘনিষ্ঠতা। সব মিলে পাস ও পছন্দের ডিভিশন লাভের সুবর্ণ সুযোগ।

সব সরকারের মন্ত্রী হিসেবে পরিচিত এক নেতা তখন মন্তব্য করে বসেছিলেন,’এই পদ্ধতিতে পরীক্ষা দিলে একজন রিকশাওয়ালাও এসএসসি পাস করবে।’

সেই পপি মারফত পরীক্ষা দিয়ে বের হওয়া মাত্রই এক বন্ধুর মুখভরা হাসি। থার্টি টু অলআউট করে আমাকে শুনিয়ে বলে, ‘সব কমন পড়েছে। একেবারে হুবহু বসায় দিছি। দাড়ি-কমাও ভুল নেই। কোন নাম্বার কাটতে পারবে না।’

তখন এসএসসি পরীক্ষা শুরু হতো বৃহস্পতিবার। রেজাল্ট হতো শুক্রবার। ফলাফলে পপির প্রতি অতি প্রেম তেমন সফল হলো না।

আমার সেই বন্ধু আপাতত পার পায়। তবে পরে লেখাপড়ার দৌড়ে টিকতে পারেনি। তখন বুঝতে পারি পপিতে নয়, সহিতেই সফলতা। ভিতরে থাকতে হবে কিছু। যে যন্ত্রের জ্বালানি বেশি, সে যন্ত্রই লম্বা দৌড়ে সক্ষম।

এসব সেই ১৯৯৫ সালের কথা। তবে এখনো সেই পপিময় দিনের কথা মনে পড়ে। মনে পড়ে, ভাইয়ের সাইকেলের পেছনের ‘ক্যারিয়ার’-এ বসে দূরের স্কুল কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে যাওয়া। স্মৃতিতে আছে, পরীক্ষার দিন সকালে ডিম, দুধ, কলা না খাওয়ার অলিখিত নিয়মটিও!

ভালো থাকুক পরীক্ষা শেষে ডাব হাতে দাঁড়িয়ে থাকা ভাই। ভালো থাকুক যতনে শাসনে মানুষ করতে চাওয়া মা-বাবা। ভালো থাকুক রঙিন শৈশবের সব সতীর্থ। ভালো থাকুন পরীক্ষা পর্যন্ত প্রোডাক্ট পৌঁছানো সব কারিগর।

লেখক : ফজলুর রহমান, সহকারী রেজিস্ট্রার, চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)।





google.com, pub-4074757625375942, DIRECT, f08c47fec0942fa0

আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)