শিরোনাম:
●   ঝালকাঠিতে ৮৫ হাজার শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ খাওয়ানো হবে ●   ঘর নির্মাণে প্রতিবেশির বাধার অভিযোগ ●   প্রকাশককে হুমকি দেওয়া দুলালের নামে থানায় জিডি ●   ঘোড়াঘাটে এক রোহিঙ্গা আটক ●   ঝিনাইদহ জেলা বিএনপি’র সম্মলন : বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় সভাপতি মজিদ, সম্পাদক পদে ৩ জনের লড়াই ●   বাগবাড়ী মহিলা কলেজ ঝড়ে লন্ড-ভন্ড ●   একটি ট্রাকসহ আন্তঃজেলার চার ডাকাত গ্রেফতার ●   শ্বশুরের প্রতারণার স্বীকার হলেন জামাই ●   বাজার নিয়ন্ত্রণ আর দেশ চালাতে না পারলে ক্ষমতা ছেড়ে দিন : সাইফুল হক ●   জাতীয় কবি নজরুল অগ্রসর চিন্তা-চেতনার প্রতীক হয়ে থাকবেন : চুয়েট ভিসি ●   উৎসুক জনতা র‍্যাবকে ডাকাত সন্দেহে আক্রমন : আহতদের চিকিৎসার জন্য হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় ●   রামগড়ে সয়াবিন তেলের ওজনে কারচুপি ●   মিরসরাইয়ে যাত্রীবাহী বাস থেকে ইয়াবাসহ গ্রেফতার-১ ●   বানিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে “ভোক্তা অধিকার বিভাগ” চায় ক্যাব ●   ঝালকাঠিতে ইউপি চেয়ারম্যানের বিক্রিত ব্রিজের মালামাল জনতার হাতে আটক ●   বিশ্বনাথের খাজাঞ্চী ইউনিয়নে ত্রাণ বিতরণ ●   ঝিনাইদহ হাসপাতালে নার্সিং কলেজের শিক্ষার্থীরা চিকিৎসকের সাক্ষর জাল করে ওষুধ উত্তোলন ●   ঘোড়াঘাটে সিটি ব্যাংকের আলোচনা সভা ●   শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সকলকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে হবে : আমু ●   রেডব্রিজ লিবারেল ডেমোক্র্যাটস শাখার ধন্যবাদ ●   সিলেটে ত্রাণ নিয়ে আসার পথে দুর্ঘটনার শিকার গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের গাড়ি ●   পানছড়িতে নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যানের দায়িত্ব গ্রহন ●   কাপ্তাই সেনা জোনে হেডম্যান কারবারী সম্মেলন ●   নবীগজ্ঞে জামাত নেতা ছলিম গ্রেফতার ●   মহালছড়িতে সরকারি টাকা নিয়ে উধাও ●   মিরসরাইয়ে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন ●   রক্তের হোলিখেলায় মেতে উঠেছে পাঞ্জের ও সবুজ হত্যা মামলার প্রধান আসামি দুলাল ●   আত্রাইয়ে ৭ জুয়াড়িসহ গ্রেপ্তার-৪ ●   সিরাজগঞ্জে হত্যা মামলায় তিনজনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড ●   বড়হাতিয়ায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের গুরু দায়িত্ব নিতে চান ইমন
রাঙামাটি, শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯



CHT Media24.com অবসান হোক বৈষম্যের
মঙ্গলবার ● ৮ মার্চ ২০২২
প্রথম পাতা » প্রকৃতি ও পরিবেশ » কেউ শোনে না পেরেকবিদ্ধ গাছের কান্না
প্রথম পাতা » প্রকৃতি ও পরিবেশ » কেউ শোনে না পেরেকবিদ্ধ গাছের কান্না
১৪৭ বার পঠিত
মঙ্গলবার ● ৮ মার্চ ২০২২
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

কেউ শোনে না পেরেকবিদ্ধ গাছের কান্না

--- বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: সকল জীব চলাফেরা করতে পারে, কেবল গাছ চলাফেরা করতে পারে না। তাই বলে কী গাছের জীবন নেই? গাছ শব্দ করে কথা বলতে পারে না, কিন্তু কাঁদতে পারে। জীবের সাথে উদ্ভিদ বা গাছের এটাই পার্থক্য।

পৃথিবীর শেষ্ঠ জীব মানুষ কিন্তু গাছের কান্নাও শোনে না! গাছ ছাড়া জীব বাঁচে না, এটা জানলেও মানছে না কেউ। প্রতিনিয়তই বৃক্ষ নিধন চলছে। মানুষ মানুষের ব্যথা বোঝে না, গাছের ব্যথা কী করে বুঝবে? গাছ-জীবের নিঃশেষিত কার্বন ডাই অক্সাইড গ্রহণ করে এবং জীবকে অক্সিজেন দেয়। উদ্ভিদ বা গাছের সাথে সম্পর্ক নিবিড়।

গাছেরও প্রাণ আছে, এটা কাউকে বোঝানোর দরকার হয় না। অথচ এ সত্য কথাটি প্রমাণে বাঙালি বিজ্ঞানী স্যার জগদীশ চন্দ্র বসুকে অনেক সাধনা করতে হয়েছিল। তিনিই প্রথম বিশ্ববাসীকে প্রমাণ দিয়ে জানিয়েছিলেন- গাছেরও প্রাণ আছে।

সিলেটের বিশ্বনাথের সড়ক-মহাসড়ক, হাট-বাজার ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে ছোট-বড় প্রতিটি গাছে নির্মমভাবে লোহা এবং বড় বড় পেরেক গাছে ঠুকে তাতে টানানো হয় নানা রঙ-বেরঙের ব্যানার-ফেস্টুন। ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, রাজনৈতিক নেতা, বিভিন্ন অনুমোদনবিহীন কোচিং সেন্টার, বেসরকারি স্কুল-কলেজের প্রচারসহ কাজী অফিস, পাত্র/পাত্রী চাই, সর্বরোগের মহৌষধ ইত্যাদি ফেস্টুন-সাইনবোর্ড দিয়ে অখ্যাত-বিখ্যাতদের বিজ্ঞাপন প্রচারে এমন নির্দয়ভাবে ক্ষত-বিক্ষত করা হচ্ছে গাছগুলোকে।

বেশিরভাগই ‘শিক্ষাদানের’ আগ্রহ দেখিয়ে ও রাজনৈতিক নেতাদের প্রচারণায় অবিচার করা হচ্ছে ছোট-বড় গাছগুলোর প্রতি।

গায়ে আলপিন/পেরেক মারার কারণে গাছে ছিদ্র তৈরি হয়। তা দিয়ে পানি ঢোকে ও এর সঙ্গে বিভিন্ন ব্যাকটেরিয়া, ছত্রাক ও পোকামাকড় ঢোকে। এতে গাছের ওই জায়গায় দ্রুত পচন ধরে। এতে রাস্তার পাশের হাজার হাজার টাকা মূল্যের গাছগুলোর যেমন ক্ষতি হচ্ছে, তেমনি পরিবেশেরও ক্ষতি হচ্ছে। সবুজ প্রকৃতির অস্তিত্ব সংকট দিন দিন বাড়ছে।

পরিবেশকে মানুষের বাঁচার উপযোগী রাখতে সবুজায়নের জন্য নানা আন্দোলন-কর্মসূচি চলে আসছে। কিন্তু কোনো আইন-কানুনের তোয়াক্কা না করে গাছে গাছে লোহা/পেরেক ঠুকে বিজ্ঞাপন প্রচারের প্রতিযোগিতায় ধ্বংস করা হচ্ছে জীবন্ত গাছগুলোকে।

শুধু তাই নয়, যেসব সড়কে খাটো খুঁটি দিয়ে বিদ্যুতের লাইন রয়েছে, সেসব সড়কের পাশে থাকা বিদ্যুতের লাইনের অজুহাতে গাছের মূল অংশ কেটে ধ্বংস করা হচ্ছে অধিকাংশ গাছ। যেন দেখার কেউ নেই!

বিশ্বনাথ উপজেলার বিভিন্ন বাজার ও সড়ক ঘুরে দেখা গেছে, একটি গাছও সুস্থ অবস্থায় নেই। গাছের ডাল-পালা ও মাথা নেই, শিকড়ে মাটি নেই, ঝড়-তুফানে বিভিন্ন সড়কে প্রায় ৬ মাস পূর্বে যেসব গাছ মাটিতে পোঁতা হয়েছিল, সেগুলো হয় চোরেরা কেটে নিচ্ছে না হয় মাটিতে ফেলা অবস্থায় রয়েছে।

অথচ দেশে বনায়নের জন্য প্রত্যেক উপজেলায় বন কর্মকর্তা রয়েছে। সর্বত্র যেন ‘সরকার কা মাল দরিয়া মে ঢাল’- এমন অবস্থায় চলছে।
বিশ্বনাথে এমনিতেই বনভূমির পরিমাণ একেবারেই কম, তারপরও সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগে যে পরিমাণ বৃক্ষ রোপণ করা হয়, সেগুলোর জীবন রক্ষা করা যাচ্ছে না ব্যানার, ফেস্টুন ও সাইনবোর্ডের কারণে।

কেউ কখনও গাছের ক্ষতির বিষয়টি মনে আনছে না। কিন্তু দেশ বাঁচাতে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় উদ্ভিদের জীবন বাঁচানো আমাদের নৈতিক দায়িত্ব।
বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) সিলেট’র সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম কিম বলেন, গাছে গাছে পেরেক/লোহা মারার ফলে গাছের স্বাভাবিক বৃদ্ধি ব্যাহত হচ্ছে। গাছে পেরেক মারার কারণে গাছের ক্ষতি হয়।

তাই গাছে পেরেক মারা ঠিন নয়। এ ধরনের প্রচার-প্রচারনা বন্ধ করা উচিত বলে মনে করি। পেরেক/লোহা মারার কারণে এমনকি অনেক গাছ মরে যাচ্ছে। গাছে পেরেক/লোহা মারা বন্ধ করে লোহা/পেরেক থেকে গাছকে মুক্ত করতে হবে। বন বিভাগকে এ ব্যাপারে এগিয়ে এসে সচেতন নাগরিকদের নিয়ে সম্মিলিতভাবে কাজ করা প্রয়োজন।

এ বিষয়ে বিশ্বনাথ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও পৌর প্রশাসক নুসরাত জাহান বলেন, গাছের মধ্যে পেরেক মারা ঠিক নয়। আইনিভাবে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও কেউ মানছে না। এ বিষয়টি আমি দেখব।

বিশ্বনাথে ১ম মিডিয়া কাপের উদ্বোধন করলেন ইউএনও নুসরাত জাহান

বিশ্বনাথ :: সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার কর্মরত প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় কর্মরত ৩২ জন সাংবাদিকের অংশগ্রহনে অনুষ্ঠিত ‘১ম বিশ্বনাথ মিডিয়া কাপ-২২’র উদ্বোধন করা হয়েছে।

নারী দিবসে’ মঙ্গলবার ৮ মার্চ বিকেলে উপজেলা পরিষদ মাঠে উদ্বোধক হিসেবে মিডিয়া কাপের উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি নুসরাত জাহান।

সাংবাদিকতার ব্যস্ত কর্মময় জীবনে একটু আনন্দ ও শরীর চর্চার জন্য প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত মিডিয়া কাপের পৃষ্ঠপোষকতা করেন যুক্তরাজ্য প্রবাসী মুমিন খান মুন্না ও শেখ আবুল বাশার। জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া মিডিয়া কাপের ৫টি ইভেন্টে ৩ দিনের (৮-১০ মার্চ) ক্রীড়া উৎসবে মাতবেন উপজেলার ৩২জন সাংবাদিক।

সমকালের প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর আলম খায়েরের সভাপতিত্বে এবং সিলেটের ডাকের প্রতিনিধি এমদাদুর রহমান মিলাদ ও আমাদের সময় প্রতিনিধি আব্বাস হোসেন ইমরানের যৌথ পরিচালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথির বক্তব্য রাখেন, মিডিয়া কাপের পৃষ্ঠপোষক প্রবাসী মুমিন খান মুন্না।

বক্তব্য রাখেন, ইত্তেফাকের প্রতিনিধি তজম্মুল আলী রাজু, উত্তরপূর্বের প্রতিনিধি প্রনঞ্জয় বৈদ্য অপু, বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রতিনিধি সাইফুল ইসলাম বেগ। অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, শুভ প্রতিদিনের সহকারী বার্তা সম্পাদক নবীন সোহেল।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, প্রবীন সাংবাদিক আব্দুল আহাদ, জাতীয় ক্যারাম ফেডারেশনের সদস্য আরব শাহ ও মুক্তার হোসেন।

মিডিয়া কাপ পরিদর্শন করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ও দৌলতপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমির আলী, বিশ্বনাথ সাংতিক ঐক্য পরিষদের সভাপতি কবি সাইদুর রহমান সাঈদ, পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক আলতাব হোসেন, বিশ্বনাথ থিয়েটারের সভাপতি আনহার আলী, চাউলধনী স্কুল এন্ড কলেজের সহকারী শিক্ষক শফিক আহমদ পিয়ার, ব্যবসায়ী ফুলকাছ মিয়া, ব্র্যাক মাইগ্রেশন ফোরামের সদস্য তাজুল ইসলাম।

মিডিয়া কাপে অংশ গ্রহনকারীদের মধ্যে এসময় উপস্থিত ছিলেন, যুগান্তরের প্রতিনিধি আশিক আলী, আনন্দ টিভির জেলা প্রতিনিধি এমআর টুনু তালুকদার, সিলেটের বাণী প্রতিনিধি অসিত রঞ্জন দেব, সিলেট মিরর প্রতিনিধি মোহাম্মদ আলী শিপন, গণমুক্তি প্রতিনিধি রোহেল উদ্দিন, যায়যায়দিন প্রতিনিধি কামাল মুন্না, সিলেটের দিনরাত প্রতিনিধি নূর উদ্দিন, আজকের কাগজ প্রতিনিধি জামাল মিয়া, দৈনিক ভোরের কুমিল্লা প্রতিনিধি মো. আবুল কাশেম, আমাদের অর্থনীতি প্রতিনিধি মশিউর রহমান, আজকালের খবর প্রতিনিধি মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম, সকালের সময় প্রতিনিধি শুকরান আহমদ রানা, মানবজমিন প্রতিনিধি আক্তার আহমদ শাহেদ, ইনকিলাব প্রতিনিধি আব্দুস সালাম, ভোরের কাগজ প্রতিনিধি বদরুল ইসলাম মহসিন, আমাদের নতুন সময় প্রতিনিধি পাবেল সামাদ, প্রথম সূর্যোদয় প্রতিনিধি কামরুল আশিকী, আমার সংবাদ প্রতিনিধি মিছবাহ উদ্দিন, শ্যামল সিলেট স্টাফ রিপোর্টার মশাহিদ আলী, ভোরের ডাক প্রতিনিধি আহমদ আলী হিরণ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।





google.com, pub-4074757625375942, DIRECT, f08c47fec0942fa0

আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)