শিরোনাম:
●   চলনবিল অঞ্চলের বড়াল নদী পানির অভাবে এখন মরাগাঙ ●   গাইবান্ধায় ঝুঁকি মোকাবেলায় বরাদ্দ বৃদ্ধির দাবিতে মানববন্ধন ●   রুমায় ৩ জেএসএস নেতা আটক ●   কুয়াকাটায় ধারণ করা ইত্যাদি বিটিভিতে প্রচারিত হবে ২৯ মার্চ ●   পানছড়ি কলেজের অধ্যক্ষের নামে মিথ্যা অভিযোগের প্রতিবাদে মানববন্ধন ●   শহরের শিক্ষার সাথে দূর্গম এলাকার স্কুলের শিক্ষার মান বাড়াতে হবে ●   মায়ের হাতে শিশুকন্যা খুন ●   আক্কেলপুরে ঐতিহ্যবাহী ঘোড়ারহাটে ক্রেতা বিক্রেতা ও দর্শনাথীদের পদচারণায় এখন মুখরিত ●   আলীকদম উপ‌জেলা চেয়ারম্যান আমার ইচ্ছার বিরুদ্ধে কিছুই করেননি : রুম পাও ম্রো ●   রাঙামাটিতে মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে উন্নয়ন বোর্ডের শিক্ষাবৃত্তি প্রদান ●   আলীকদমে স্বাধীনতা দিবস কাবাডি প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত ●   রাজশাহীতে লেভেল ক্রসিং সামলাচ্ছেন এক নারী ●   গোলাপগঞ্জে মিষ্টি রহস্য, বিষক্রিয়ায় ১জনের মৃত্যু, আশঙ্কাজনক-৩ ●   আলীকদম উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালামের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিন্দার ঝড় ●   চলনবিলের বিস্তির্ণ ফসলের মাঠ ইরি-বোরো ধানের সবুজের সমারোহ ●   ছুরিকাঘাতে বন্ধু খুন : ঘাতক বন্ধুর থানায় আত্মসমর্পণ ●   বান্দরবানে ম‌ডেল পাড়া কেন্দ্রের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন কর‌লেন মন্ত্রী বীর বাহাদুর ●   সংসদে চকোলেট খেয়ে ক্ষমাপ্রার্থী কানাডার প্রধানমন্ত্রী ●   ময়মনসিংহে পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হয়ে ২৫ কলেজ শিক্ষার্থী হাসপাতালে ●   তরুণ, নারী এবং দরিদ্র জনগোষ্ঠির সুরক্ষায় তামাকপণ্যের মূল্য বৃদ্ধির প্রস্তাব ●   ঈশ্বরদীতে শত বর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠান ●   বাঘাইছড়ির ৮ জন নির্বাচন কর্মকর্তা হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে রাজধানীতে মানববন্ধন ●   রাঙামাটিতে আ’লীগ নেতা সুরেশ কান্তি তংচঙ্গ্যার হত্যা মামলায় আটক-১ ●   ময়মনসিংহে দুই মাদক বিক্রেতা আটক ●   রাণীনগরে বিলে মাছ ধরা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে দ্বন্দ্ব ●   গাইবান্ধায় তামাকের কালো ছায়া গ্রাস করছে ফসলের ক্ষেত ●   রাঙামাটিতে সন্ত্রাসী হামলায় আহতদের দেখ‌তে গে‌লেন মন্ত্রী বীর বাহাদুর ●   বিপ্লবের মহানায়ক মাস্টারদা সূর্য সেন এর জন্মদিবসে শ্রদ্ধা নিবেদন ●   তদন্ত কমিটির সদস্যরা আজ বাঘাইছড়িতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ●   চাটমোহরে লিচু চাষীদের মুখে হাসি
রাঙামাটি, মঙ্গলবার, ২৬ মার্চ ২০১৯, ১১ চৈত্র ১৪২৫


CHT Media24.com অবসান হোক বৈষম্যের
রবিবার ● ১০ মার্চ ২০১৯
প্রথম পাতা » গাইবান্ধা » বর্ষায় তৎপর, শুষ্ক মৌসুমে নিষ্ক্রিয় পানি উন্নয়ন বোর্ড
প্রথম পাতা » গাইবান্ধা » বর্ষায় তৎপর, শুষ্ক মৌসুমে নিষ্ক্রিয় পানি উন্নয়ন বোর্ড
৪৯ বার পঠিত
রবিবার ● ১০ মার্চ ২০১৯
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

বর্ষায় তৎপর, শুষ্ক মৌসুমে নিষ্ক্রিয় পানি উন্নয়ন বোর্ড

---গাইবান্ধা প্রতিনিধি :: নদী ভাঙনে প্রতিবছর সর্বশান্ত হচ্ছে উত্তরের জেলা গাইবান্ধার শতশত মানুষ। ভুক্তভোগীদের অভিযোগ ভাঙন ঠেকাতে কেবল বর্ষাকালে তৎপর হলেও শুষ্ক মৌসুমে হাত-পা গুটিয়ে বসে থাকে পানি উন্নয়ন বোর্ড। সঠিক সময়ে কাজ না করলে ভাঙন ঠেকানো সম্ভব নয় বলে মত উন্নয়ন কর্মীদের। আর পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, প্রকল্প অনুমোদন না হলে কিছুই করার নেই তাদের।
ব্রহ্মপুত্রের ভাঙনে মুহূর্তেই নদীগর্ভে হারিয়ে যায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, বাড়িঘর, গাছপালা, রাস্তাঘাট। অদৃশ্য হয়ে যায় চিরচেনা গ্রাম। বাস্তুভিটা হারিয়ে দীর্ঘদিনের সামাজিক বন্ধন ছিন্ন করে জীবিকার তাগিদে অন্যত্র ছড়িয়ে পড়ছে অসহায় মানুষগুলো। গরীবের ঝুপড়ি ঘর থেকে শুরু করে ধনীদের ইট, কাঠ, পাথরের তৈরি দালান কোঠা পর্যন্ত রক্ষা পায়নি ব্রহ্মপুত্র নদের ভয়াল ছোবল থেকে। নদী ভাঙন থেকে এই জনপদ রক্ষায় বর্ষা মৌসুমের বদলে শুকনো মৌসুমে কার্যকরী উদ্যোগ গ্রহণের দাবি ভুক্তভোগীদের।
স্থানীয়রা বলেন, যখন ভাঙন শুরু হয় তখন পানি উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে বস্তা ফেলা হয়। বর্ষা শেষ হলে তাদের আর কোনো তৎপরতা দেখা যায় না। বর্ষা এলেই গাইবান্ধা সদর, সুন্দরগঞ্জ, সাঘাটা ও ফুলছড়ি উপজেলার বেশ কয়েকটি পয়েন্টে ভাঙন দেখা দেয়। এছাড়া গাইবান্ধা অংশে ব্রহ্মপুত্র নদের ডানতীরে ৭৮ কিলোমিটার বাঁধের পুরোটাই ঝুঁকিপূর্ণ হলেও সংস্কারের উদ্যোগ নেই।
গাইবান্ধার ৪টি উপজেলার ২৫টি মৌজা ভাঙন প্রবণ। তার মধ্যে সদরের বাগুড়িয়া থেকে ফুলছড়ির গণকবর পর্যন্ত চারটি পয়েন্টে ভাঙন প্রতিরোধে গত বছরের জুনে প্রায় ৩শ’ কোটি টাকার একটি প্রকল্প উদ্বোধন হলেও এখনো ব্লক তৈরির কাজ শেষ হয়নি।
বেসরকারি সংগঠন গণ উন্নয়ন কেন্দ্রের তথ্য মতে, নদী ভাঙনে গাইবান্ধাসহ উত্তরের চার জেলা থেকে গত ১০ বছরে প্রায় ৪ লাখ মানুষ এলাকা ছেড়েছে। এ অবস্থায় ভাঙন প্রতিরোধে সঠিক সময়ে কাজ শুরুর দাবি উন্নয়নকর্মীদের।
গাইবান্ধা গণ উন্নয়ন কেন্দ্রের প্রধান নির্বাহী এম আব্দুস সালাম বলেন, বিশেষজ্ঞদের খুঁজে বের করতে হবে কাজের সঠিক সময় কোনটি। এটা করা গেলে অর্থের অপচয় হবে না এবং বরাদ্দ কাজে লাগবে।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোখলেছুর রহমান বলেন, বরাদ্দ না পেলে শুষ্ক মৌসুমে কাজ করা সম্ভব নয়।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)