শিরোনাম:
●   জামায়াতের সরিষাতেই ভুত ●   জয়পুরহাটে পিতলের মূর্তিসহ এক চোরাকারবারি আটক ●   ভালুকায় পুকুর খননের সময় মাটির নীচ থেকে ২৬ কেজি ওজনের কষ্টি পাথরের ত্রিমূর্তি উদ্ধার ●   বাসিয়া নদীটি খননের ১ কোটি ৮০ লাখ টাকা ব্যয়ে খনন কাজটি পুরোটাই জলে ●   ঘুমের ইনজেকশন পুশ করে ৭ম শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষন করলো গ্রাম্য চিকিৎসক সাইফুল ●   গাইবান্ধায় ইরি-বোরো ক্ষেতে কৃষকের সোনালি স্বপ্নের হাতছানি ●   বান্দরবান জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লার মনগড়া বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছেন সাংবাদিকরা ●   গফরগাঁওয়ে যুবলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ-৫ : আহত-১১ ●   ভাত না খাওয়ায় মায়ের এক থাপ্পড়ে ৫ বছরের মেয়ের মৃত্যু : মা আটক ●   কাউখালীতে ৭ম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে আটক-১ ●   সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ আর নেই ●   র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী মহিউদ্দিন নিহত ●   ব্যারিষ্টার আমিনুল হকের মৃত্যুতে ফারুক চৌধুরীর শোক ●   শ্রীলংকায় গির্জায় হামলায় মৃতের সংখ্যা ২০৭ ছাড়িয়েছে ●   চট্টগ্রামে মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের মানববন্ধন ●   রবিদাস সম্প্রদায়ের জমি জবর দখলের অপচেষ্টা ●   ময়মনসিংহে অটোরিকশা-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত-৪, আহত-৪ ●   মাদকের বিষয়ে কোন ছাড় নয় : আরএমপি কমিশনার ●   ঝিনাইদহে আ’লীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা ●   আত্রাইয়ে আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশের ভুমিকা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন ●   বিশ্বনাথে মেলার নামে লটারি বাণিজ্য ●   লামায় শাক-সবজি ক্ষতের আড়ালে গাঁজা চাষ ●   লামায় পিকআপ দূর্ঘটনায় আহত শিশুর মৃত্যু ●   মেয়েকে ধর্ষণের ভিডিও বাবাকে দেখিয়ে ধর্ষকের হুমকী : ধর্ষিতার আত্মহত্যার চেষ্টা ●   দেশে ১৫ দিনে ৩৯ ধর্ষণ ●   সুন্দরবনে ৯ ফুট লম্বা অজগর অবমুক্ত ●   দরিদ্র মায়ের আশা পূরণ হলো হোটেল বয় গৌর চন্দ্র স্কুলে ●   প্রলোভনে তামাক চাষ, আর্থিক লোকসানের মুখে চাষীরা ●   রাজশাহীতে ইয়াবাসহ কারারক্ষী গ্রেপ্তার ●   দীঘিনালায় সম্প্রীতি মেলার নামে অশ্লীল জুয়া-হাউজীর আসর
রাঙামাটি, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ১০ বৈশাখ ১৪২৬


CHT Media24.com অবসান হোক বৈষম্যের
বুধবার ● ১৭ অক্টোবর ২০১৮
প্রথম পাতা » গাইবান্ধা » ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙনের কবলে আশ্রয়ন প্রকল্পের ২৮০টি ঘর
প্রথম পাতা » গাইবান্ধা » ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙনের কবলে আশ্রয়ন প্রকল্পের ২৮০টি ঘর
১৯৩ বার পঠিত
বুধবার ● ১৭ অক্টোবর ২০১৮
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙনের কবলে আশ্রয়ন প্রকল্পের ২৮০টি ঘর

---গাইবান্ধা প্রতিনিধি :: (২ কার্তিক ১৪২৫ বাঙলা: বাংলাদেশ সময় বিকাল ৪.৩৫মি.) গাইবান্ধা সদর উপজেলার মোল্লারচর ইউনিয়নের চিথুলিয়া ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কাপাসিয়া ইউনিয়নের ভাটি কাপাসিয়া পূর্ব বাদামের চরে নির্মিত আশ্রয়ন প্রকল্প দুটির ২৮০টি ঘর ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙনের কবলে পড়েছে। এসব আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর নির্মাণের পর নদী ভাঙনরোধে কোনো ব্যবস্থা না থাকায় কয়েক বছরের মধ্যে আবারও আশ্রয়ন প্রকল্পগুলো নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। এতে করে সরকারের কোটি কোটি টাকার অপচয় হয়। এসব আশ্রয়ন প্রকল্প নির্মাণের পরে নদী ভাঙনরোধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হলে প্রকল্পের উদ্দেশ্য স্বার্থক হবে বলে মনে করেন ভুক্তভোগীরা।
সরেজমিনে দেখা গেছে, মোল্লারচর ইউনিয়নের চিথুলিয়া আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘরগুলো নদীভাঙনের কবলে পড়েছে। ইতোমধ্যে ভেঙেছে ১০টি ঘর। এসব ঘর প্রস্তুতের এক বছর পেরিয়ে গেলেও সবগুলো ঘর বরাদ্দ দেয়া হয়নি গৃহহীনদের। ভাটি কাপাসিয়া চরের আশ্রয়ন প্রকল্পটির ইতোমধ্যে ৩৫টি ঘর ভেঙ্গে গেছে। ভাঙনের মুখে রয়েছে এই দুটি প্রকল্পের অন্যসব ঘরগুলোও।
আশ্রয়ন প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, ভূমিহীন, গৃহহীন, ছিন্নমূল, অসহায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে পুনর্বাসন করতে ১৯৯৭ সাল থেকে এদেশে আশ্রয়ন প্রকল্প নির্মাণ শুরু হয়। স্থানীয় উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার মাধ্যমে সেই জমিতে মাটি ভরাট করা হয় ও ঘর নির্মাণ করে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। পরে আশ্রয়ন প্রকল্পের দায়িত্ব বুঝে দেয়া হয় স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে।
গাইবান্ধা জেলা প্রশাসনের রাজস্ব বিভাগ সূত্রে জানা যায়, জেলার সাত উপজেলার মধ্যে সুন্দরগঞ্জে ১২টি, সদর উপজেলায় ৪টি, ফুলছড়িতে ১টি, সাঘাটায় ৮টি, সাদুল্লাপুরে ২টি, পলাশবাড়ীতে ১টি ও গোবিন্দগঞ্জে রয়েছে ৯টি আশ্রয়ন প্রকল্প। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি আশ্রয়ন প্রকল্প রয়েছে ব্রহ্মপুত্র নদসহ তিস্তা ও যমুনা নদীবেষ্টিত চরাঞ্চলগুলোতে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চিথুলিয়ার চরে আশ্রয়ন প্রকল্পের ১৪০টি ঘর নির্মাণ কাজ শেষ হয় ২০১৭ সালে। তখন নদী ছিল প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে। সুন্দরগঞ্জের ভাটি কাপাসিয়া পূর্ব বাদামের চরে নির্মিত আশ্রয়ন প্রকল্পের ১৪০টি ঘর নির্মিত হয় ৫ বছর আগে। তখন নদী ছিল প্রায় দেড় কিলোমিটার দূরে। কিন্তু ব্রহ্মপুত্র নদের অব্যাহত ভাঙনে সেই নদী এসে এখন এই প্রকল্পের ঘরগুলো ভেঙে ফেলছে।
এ ছাড়া ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙনের ফলে মোল্লারচর ইউনিয়নের সিধাই চরের ১২০টি ঘর ২০১৭ সালের প্রথমের দিকে ও মাইজবাড়ীর চরে আশ্রয়ন প্রকল্পের ১২০টি ঘর নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে একই বছরের শেষের দিকে। এতে করে পরিবারগুলো আবারও আশ্রয়হীন হয়ে পড়ে। তারা আবার অন্য চরে গিয়ে বসবাস শুরু করে।
নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সোলেমান আলী বলেন, আমি এখানে সম্প্রতি যোগদান করেছি। ভাঙনের বিষয়টি আমার জানা নেই। ভাঙনরোধে যদি কোনো ব্যবস্থা নেয়ার থাকে তাহলে আমি নেব।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)