শিরোনাম:
●   পুলিশের অভিযানে চার ছিনতাইকারী গ্রেফতার ●   পাহাড়ে অস্ত্রধারীদের হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে বান্দরবানে রাজপথে আ’লীগ ●   গাইবান্ধায় খোলা আকাশের নিচে পাঠদান ●   সহোদর দুই ভাইকে হত্যার দায়ে ৪ জনের মৃত্যুদন্ড ●   বিশ্বনাথে ৯ জনের জামানত বাজেয়াপ্ত ●   শিক্ষকের অনৈতিক কর্মকান্ডের প্রতিবাদে ঝাঁড়ু মিছিল ●   প্রযুক্তি খাতে নারীদের অংশগ্রহণ বাড়াতে হবে : চুয়েট ভিসি ●   বাঘাইছড়িতে নিহতদের ময়না তদন্ত সম্পন্ন : মামলা হয়নি ●   মির্জাগঞ্জে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী যারা ●   আলীকদমে আবুল কালাম, শিরিনা আক্তার ও কফিল উদ্দিন নির্বাচিত ●   গাইবান্ধার ৫ উপজেলায় ২ বিদ্রোহী, ৩ আ’লীগ বিজয়ী ●   রাঙামাটিতে পার্বত্য ভূমিবিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের বৈঠক অনুষ্ঠিত ●   বিশ্বনাথে নুনু-হাবিব-জুলিয়া নির্বাচিত ●   ঝিনাইদহে ১০৭ ইটভাটার মধ্যে পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্রসহ নিবন্ধন রয়েছে ১৮ টি ●   গাবতলীতে রবিন,মুক্তা ও রেকসেনা নির্বাচিত ●   মহালছড়িতে বিমল কান্তি চাকমা,জসিম উদ্দিন ও সুইনুচিং চৌধুরী বিজয়ী ●   রাঙামাটিতে নির্বাচনকর্মীদের ওপর হামলায় ইসির নিন্দা ●   রাঙামাটিতে প্রিজাইডিং অফিসারসহ ৬ জনকে ব্রাশ ফায়ার করে হত্যা ●   রাস্তা দখল করে অটোরিক্সা ষ্টেশন ●   শিশু চুরির ৬ দিন পর লাশ উদ্ধার : আটক - ৬ ●   অপহরণের দায়ে যুবক কারাগারে : পরিবারের দাবী সাজানো নাটক ●   শিশু দিবসে গুইমারতে স্থানীয়দের চিকিৎসা সেবা দিল সেনাবাহিনী ●   আত্রাইয়ে র‌্যাব এর টহল জোরদার ●   রাউজানে অগ্নিকাণ্ডে বসতঘর ভস্মীভূত ●   রাঙামাটিসহ দেশব্যাপী বঙ্গবন্ধুর ৯৯ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত ●   রাজশাহীতে প্রতিবন্ধী ছাত্রী অপহরণের ৪ দিন পরও উদ্ধার হয়নি ●   গাইবান্ধায় জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ পালন ●   লামায় জীপ চাপায় নির্মান শ্রমিক নিহত ●   আদম বেপারীর খপ্পরে পড়ে পরিবার নিয়ে পথে পথে ঘুরছে নওগাঁর সিরাজুল ●   প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কথা বলায় ক্রীড়া সংগঠক কিরণ গ্রেফতার
রাঙামাটি, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০১৯, ৭ চৈত্র ১৪২৫


CHT Media24.com অবসান হোক বৈষম্যের
রবিবার ● ৩ মার্চ ২০১৯
প্রথম পাতা » কৃষি » ব্রহ্মপুত্রের চর জুড়ে ফসলের বিপ্লব
প্রথম পাতা » কৃষি » ব্রহ্মপুত্রের চর জুড়ে ফসলের বিপ্লব
৩২ বার পঠিত
রবিবার ● ৩ মার্চ ২০১৯
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

ব্রহ্মপুত্রের চর জুড়ে ফসলের বিপ্লব

---গাইবান্ধা প্রতিনিধি :: গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার ব্রহ্মপুত্রের চরের কৃষকরা রবি ফসলের বিপ্লব ঘটিয়েছেন। ক্রমশ পাল্টে যাচ্ছে ব্রহ্মপুত্র নদীর চিত্র। নদী হারাচ্ছে তার বৈশিষ্ট্য। শুস্ক মৌসুমে ব্রহ্মপুত্রর বুকে জেগে উঠা চরের অস্তিত্ব স্বাভাবিক মনে হলেও তা এখন ভিন্নরূপ ধারণ করেছে। খরস্রোতা ব্রহ্মপুত্র এখন যেন মরুভূমি। ইতিমধ্যেই নদীতে জেগে উঠা অনেক চরের বিস্তৃতি বৃদ্ধির পাশাপাশি তা স্থায়ী চরে পরিণত হয়েছে। এক সময় ব্রহ্মপুত্র ছিল এ অঞ্চলের মানুষের দুঃখের কারণ। আর এখন সেই নদীর বালু চরে বিভিন্ন ফসল ফলিয়ে কৃষক তাদের ভাগ্য পরিবর্তন করছে।
সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, সাঘাটা উপজেলার ব্রহ্মপুত্র নদের বুকে জেগে ওঠা চরে আমন ও বোরো ধানের আবাদ না হলেও রবি ফসলের চাষ করে বাম্পার ফলন পাচ্ছে কৃষক। গত কয়েক বছর ধরে বর্ষা মৌসুমে এই চর গুলোতে বন্যার পানি না ওঠায় চরবাসি সেখানে স্থায়ী বসতি গড়েছে। কিছুদিন আগেই ছিল। যখানে জনবসতিহীন দুর্গম চর এখন সেখানে বসেছে প্রাণের মেলা। এখন দেখা মেলে চোখ ধাঁধাঁনো বর্ণিল সবুজ ফসলের সরব উপস্থিতি। নাব্যতা সংকট প্রমত্তা ব্রহ্মপুত্র নদের বেহাল দশাই কৃষকের ভাগ্য উন্নয়নে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। এক সময়ের ধু-ঁধুঁ সাদা বালুচর গুলোতে পলিমাটির স্তর পড়ে এখন আবাদি জমিতে পরিণত হয়েছে। বৈদ্যুতিক সেচ ব্যবস্থা না থাকলেও স্যালো মেশিন বা অগভীর নলকুপের সাহায্যে জমিতে পানি সেচ দিয়ে অসম্ভবকে সম্ভব করেই বালুচরে ভুট্রা, গম, জব, চিনা, কাউন, কালোজিরা, কুমড়া, লাউ, টমেটো, মুলা, আলু, পালংশাক, লালশাক, বেগুন, পিয়াজ, মরিচ, শসা, শিম, করলা, গাজর, ধনিয়া বিভিন্ন শাকসবজি সহ বিভিন্ন অর্থকরী ফসলের বিপ্লব ঘটিয়েছে কৃষকরা।
গাড়ামারা চরের কৃষক রবিউল ইসলাম জানান, তিনি গত বছর এক একর জমি থেকে ১২০ মণ ভুট্টা ঘরে তুলেছেন। এবার তিনি ওই জমিতে আরো বাম্পার ফলনের আশা করছেন। কৃষক আব্দুর রাজ্জাক প্রায় ৩০ বছর আগে তাদের পূর্ব পুরুষদের ভেঙ্গে যাওয়া জমিতে নতুন উদ্যমে চাষ শুরু করেছেন। তিনি জানান, প্রথম দিকে চরের জমিতে শুধু কালাই, চিনা, কাউন, বাদাম, তিলের চাষ করলেও এখন রীতিমতো ভুট্টা, গম চাষ করেছি। আর এ থেকে অনেক অর্থ আয় করছেন এখন তাদের কোন অভাব নেই।
গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার এ চরগুলোর পূর্বে জামালপুর জেলার ইসলামপুর ও দক্ষিণে বগুড়া জেলার সারিয়াকান্দি উপজেলার সীমানা জুড়ে জেগে উঠেছে এসব চর। কিন্তু জেগে ওঠা এই সকল জমির সঠিক কোন পরিসংখ্যান কিংবা তথ্য স্থানীয় কৃষি দপ্তরগুলোতে নেই। এমনকি এসমস্ত জমির ভোগ দখলকারীরাও জানে না তাদের জমি গুলোর সঠিক পরিমাপ ও সীমানা কোথায়। পাতিলবাড়ী চরের কৃষক পূর্ব পুরুষদের স্মৃতি জড়ানো জমির আইলে বসে থাকা মনির হোসেন (৫৫) জানালেন, কৈশর বয়সে এই সব জমি ব্রহ্মপুত্রতে বিলিন হয়েছিল। বিলিন হওয়া জমি গুলো আবারো জেগে উঠে আবাদি জমিতে পরিণত হতে পারে তা তিনি কখনো ভাবেননি।
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্ত রংপুর অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক শাহ আলম সম্প্রতি চর গুলো ঘুরে কৃষকদের এসব ক্ষেত দেখে বলেন, মুল ভুখন্ডের জমির চেয়ে এসব চরের জমির ফসলের ফলন অনেক বেশী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। চরের জমিতে কৃষকরা এমন ফসল ফলাবে কল্পনা করা যায় না। এখনও যে সব জমি পরিত্যক্ত রয়েছে সে গুলো চাষের আওতায় আনা হলে এসব চরে ভুট্টা ও গম চাষে অপার সম্ভাবনা রয়েছে।



পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)