শিরোনাম:
●   মনোনয়ন জমা দিলেন উজানগ্রাম ইউপি’র সানোয়ার মোল্লা ●   রাঙামাটি কারাগারে মাদকবিরোধী গণসচেতনতামূলক আলোচনা সভা ●   রুমা উপজেলায় মাসিক আইন শৃঙ্খলা সভা অনুষ্ঠিত ●   রাঙামাটিতে দুর্বৃত্তের গুলিতে পিসিজেএসএস নেতা আবিস্কার চাকমা নিহত ●   দেশের প্রথম তৃতীয় লিঙ্গের চেয়ারম্যানকে শুভেচ্ছা জানালেন কালীগঞ্জ থানার ওসি ●   পাটিকাবাড়ি ইউপি’র চেয়ারম্যানের মাদক সেবনের ভিডিও ভাইরাল ●   বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অঞ্চলের উন্নয়ন কর্মকান্ড দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন সৌদি মন্ত্রী ●   কাফনের কাপড় গলায় ঝুলিয়ে প্রচারণা চালানো বিদ্রোহী প্রার্থী চেয়ারম্যান নির্বাচিত ●   কুষ্টিয়ায় বিদ্রোহীদের চাপে নৌকার ভরাডুবি ●   ঝালকাঠিতে নারীর রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন : নীতিমালা বাস্তবায়নের সভা ●   ময়মনসিংহ মেডিকেলের করোনা ইউনিটে করোনা উপসর্গে ৩ জনের মৃত্যু ●   কাউখালিতে ৪ ইউপিতে নিবাচন সম্পন্ন ●   রাঙামাটিতে ভোট চুরি ও ভোট গননায় অনিয়মে সড়ক অবরোধ ●   নবীগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে ১৩ ইউপির মধ্যে ৪টি নৌকা ৪টি বিদ্রোহী,৩টি বিএনপি,২টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়ী ●   হিজড়া প্রার্থীর কাছে পাঁচ হাজার ভোটের ব্যবধানে নৌকার ভরাডুবি ●   দীঘিনালা ও মহালছড়ির ৭ ইউপিতে নির্বাচনে জয়ী যারা ●   নিষিদ্ধ ঘোষিত পূর্ব বাংলা কমিউনিষ্ট পার্টি-এমএল’র সক্রিয় সদস্য গ্রেফতার ●   তামাক কোম্পানির সিএসআর বন্ধ করতে হবে ●   বাংলাদেশে এখন একটা গাছের পাতা নড়তে পারে না শেখ হাসিনার কথা ছাড়া : সোনার বাংলা পার্টির ১২তম বর্ষপূর্তিতে মান্না ●   মাইসছড়ি ইউপিতে আনারস মার্কার স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সাজাই মারমা জয়ী ●   নির্বাচনী সহিংসতায় দীঘিনালায় ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়িতে হামলা : আহত-১৬ ●   তৃতীয় ধাপে ইউপি নির্বাচন গাইবান্ধায় চলছে ভোটগ্রহণ ●   বিশ্বনাথে আমন ধানের বাম্পার ফলন : কৃষকের মুখে হাসি ●   শহীদ মিলন দিবসে শহীদের প্রতি বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির শ্রদ্ধা জ্ঞাপন ●   ভারতে কৃষক জাগরণের বিজয়ের বার্তা-সাইফুল হক ●   মুক্তিযোদ্ধাদের আবাসন নির্মাণ কাজে দরপত্র প্রদানে অনিয়মের অভিযোগ ●   রামগড়ে প্রশ্নপত্র ফাঁস,বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল ●   কালীগঞ্জে গভীর রাতে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা ●   চার্চফিল্ড ওয়ার্ডে লিবডেমের কাউন্সিলার প্রার্থী অহিদ উদ্দিনের গণসংযোগ ●   দীঘিনালার ইউপি নির্বাচনে এই প্রথমবারের মতো চেয়ারম্যান পদে নারী প্রার্থী
রাঙামাটি, বুধবার, ১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ন ১৪২৮


CHT Media24.com অবসান হোক বৈষম্যের
রবিবার ● ২৪ অক্টোবর ২০২১
প্রথম পাতা » অর্থ-বাণিজ্য » আত্রাইয়ে খেজুর রস সংগ্রহে ব্যস্ত গাছিরা
প্রথম পাতা » অর্থ-বাণিজ্য » আত্রাইয়ে খেজুর রস সংগ্রহে ব্যস্ত গাছিরা
৫০ বার পঠিত
রবিবার ● ২৪ অক্টোবর ২০২১
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

আত্রাইয়ে খেজুর রস সংগ্রহে ব্যস্ত গাছিরা

ছবি : সংবাদ সংক্রান্ত নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি :: নওগাঁর আত্রাই উপজেলায় রেল লাইনের দু‘পাশে তাকালেই চোখে পড়ে সারি সারি অসংখ্য খেজুর গাছ। শীতের আগমনী বার্তার সাথে সাথে খেজুর রস সংগ্রহে ব্যাস্ত হয়ে পড়েছে গাছিড়া। বৈচিত্রপূর্ণ ছয়টি ঋতুর দেশ আমাদের প্রিয় জন্মভ’মি বাংলাদেশ। এক একটি ঋতুর রয়েছে এক একটি বৈশিষ্ট্য। ঋতু বৈচিত্রে এখন রাতের শেষে কুয়াশা জানান দিচ্ছে শীতের আগমন বার্তা। আবহমান গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্য খেজুর রস সংগ্রহে নওগাঁর আত্রাই উপজেলার প্রতিটি গ্রামে গ্রামে খেজুর রস সংগ্রহের জন্য গাছিরা খেজুর গাছ কাটার কাজে এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন।

ক্যালেন্ডারে শীতের ঘোষণা দিলেও মানতে নারাজ আবহাওয়া ও পরিবেশ প্রকৃৃতি এখন আর পঞ্জিকার অনুশাসন মানছে না। আর সপ্তাহ খানেকের মধ্যেই গাছ থেকে রস সংগ্রহের পর্ব শুরু হবে। এবার কিছুটা আগেই নওগাঁর আত্রাই উপজেলায় প্রান্তিক জনপদের গ্রামে গ্রামে সকালের শিশিরের সাথে অনুভ’ত হচ্ছে মৃদু শীত।

আর মাত্র কয়েক দিন পর রস সংগ্রহ করে রস থেকে লালি ও গুড় তৈরির পর্ব শুরু হয়ে চলবে প্রায় মাঘ মাস পর্যন্ত। খেজুর গাছ থেকে রস সংগ্রহের প্রস্তুতি উপজেলার প্রতিটি গ্রামে চোখে পড়ছে। খেজুর রস ও গুড়ের জন্য আত্রাই উপজেলা এক সময় খ্যাতি ছিল। সময়ের বিবর্তনে হারিয়ে যেতে বসেছে গ্রাম বাংলার প্রাচীনতম ঐতিহ্যবাহী খেজুরের গুড়। কিছুদিন আগেও বিভিন্ন এলাকার অধিকাংশ বাড়িতে, ক্ষেতের আইলে, ঝোপ-ঝাড়ের পাশে ও রাস্তার দুই ধার দিয়ে ছিল অসংখ্য খেজুর গাছ।

কোন পরিচর্যা ছাড়াই অনেকটা প্রাকৃৃতিক ভাবে বেড়ে উঠতো এসব খেজুর গাছ। প্রতিটি পরিবারের চাহিদা পূরন করে অতিরিক্ত রস দিয়ে তৈরি করা হতো সুস্বাদু খেজুরের গুড়। গ্রামীন জনপদে সাধারণ মানুষের সচেতনতার অভাবে পুকুরের পাড়ে রাস্তার ধারে পরিবেশ বান্ধব খেজুর গাছ এখন আর তেমন চোখে পড়ে না। ইট ভাটার রাহু গ্রাসে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার বেশি হওয়ার কারণে যে পরিমাণ গাছ চোখে পড়ে তা নির্বিচারে নিধন করায় দিনদিন খেজুর গাছ কমছেই।

এখনও শীতকালে শহর থেকে মানুষ দলে দলে ছুটে আসে গ্রাম বাংলার খেজুর রস খেতে। এক সময় সন্ধ্যাকালীন সময়ে গ্রামীন পরিবেশটা খেজুর রসে মধুর হয়ে উঠতো। রস আহরণকারী গাছিদের প্রাণচাঞ্চল্য লক্ষ্য করা যেত সে সময়ে। রস জ্বালিয়ে পাতলা ঝোলা, দানা গুড় ও পাটালী তৈরি করতেন।

যার সাধ ও ঘ্রাণ ছিল সম্পূর্ণ ভিন্ন। এখন অবশ্যই সে কথা নতুন প্রজন্মের কাছে রূপকথা মনে হলেও বাস্তব। যত বেশি শীত পড়বে তত বেশি মিষ্টি রস দেবে খেজুর গাছ। এ গাছ ৮ থেকে ১০ বছর পর্যন্ত রস দেয়। এটাই তার বৈশিষ্ট্য। শীতের পুরো মৌসুমে চলে রস, গুড়, পিঠা, পুলি ও পায়েস খাওয়ার পালা। এ ছাড়া খেজুরর পাতা দিয়ে আর্কষনীয় ও মজবুত পাটি তৈরী হয়। এমনকি জ্বালানি কাজেও ব্যাপক ব্যবহার। কিন্তু জয়বায়ু পরিবর্তন, কালের বির্বতনসহ বন বিভাগের নজরদারী না থাকায় বাংলার ঐতিহ্যবাহী খেজুর গাছ এখন উপজেলা জুড়ে বিলুপ্তির পথে।

নাটোরের লালপুর উপজেলা থেকে আসা গাছি কালাম মিঞা ও তার সহকর্মীরা জানান, আমরা পেশাগত কারণে প্রায় প্রতি বছরেই আত্রাই উপজেলার বজ্রপুর গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস এর জমিতে তাবু গেড়ে ওই এলাকার খেজুর গাছ মালিকদের কাছ থেকে ৪ মাসের জন্য গাছ ভেদে ৫থেকে ৭কেজি করে খেজুরের গুড় দিয়ে গাছ গুলো আমরা নেই।

চাহিদা মত খেজুর গাছ না পাওয়ার কারণে রস কম হওয়ায় আশানুরুপ গুড় তৈরি করতে পাড়ি না। তারপরও এবছর প্রায় ২ শ’টির বেশি খেজুর গাছের মালিকদের সাথে চুক্তি করেছি। বাপ-দাদার পেশা ছেড়ে না দিয়ে জীবন-জীবিকার জন্য এই পেশা ধরে রেখেছি।

তবে যে ভাবে খেজুর গাছ কাটা হচ্ছে অল্প দিনের মধ্যেই এই এলাকায় আর আমাদের ব্যবসা হবে না। বর্তমান বাজারে আখের গুড় চিনি যে মূল্যে বেচাকেনা হচ্ছে তার চেয়ে মানসম্পন্ন খেজুরের গুড়ের দাম এবছর কিছুটা বেশি হবে এমনটাই আসা করছেন গাছিরা। শীত একটু বেশি পড়তে শুরু করলে আত্মীয়-স্বজন আনা নেয়া ও পিঠা-পুলির উৎসবে খেজুর গুড়ের দাম ও চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় সে সময় আমাদের লাভ একটু বেশি হয়। যে পরিমাণে শ্রম দিতে হয় সে পরিমাণে আমরা লাভ করতে পারি না। তবুও পেশাগত কারণে চালিয়ে যাচ্ছি এই ব্যবসা।

এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা কৃষিবিদ কে এম কাউছার হোসেন জানান, বাংলাদেশের প্রতিটি অঞ্চলেই খেজুর গাছ প্রায় বিলুপ্তির পথে। গাছিদের খেজুর গাছ কাটার কাজটি শিল্প আর দক্ষতায় ভরা। ডাল কেটে গাছের শুভ্র বুক বের করার মধ্যে রয়েছে কৌশল, রয়েছে ধৈর্য ও অপেক্ষার পালা। এ জন্য মৌসুমে আসার সাথে সাথে দক্ষ গাছিদের কদর বাড়ে।

এদিকে উপজেলার সচেতন মহল মনে করেন, খেজুর গাছ আমাদের অর্থনীতি, সংস্কৃতি, সাহিত্য তথা জীবনধারায় মিশে আছে। এই ঐতিহ্যকে যে কোন মূল্যে আমাদের রক্ষা করতে হবে।



google.com, pub-4074757625375942, DIRECT, f08c47fec0942fa0

অর্থ-বাণিজ্য এর আরও খবর

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অঞ্চলের উন্নয়ন কর্মকান্ড দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন সৌদি মন্ত্রী বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অঞ্চলের উন্নয়ন কর্মকান্ড দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন সৌদি মন্ত্রী
খাগড়াছড়িতে সর্বোচ্চ আয়কর প্রদানকারী পেলেন সম্মাননা খাগড়াছড়িতে সর্বোচ্চ আয়কর প্রদানকারী পেলেন সম্মাননা
মাছ শূন্য আত্রাইয়ের শুঁটকি পল্লী লোকসানের শঙ্কায় ব্যবসায়ীরা মাছ শূন্য আত্রাইয়ের শুঁটকি পল্লী লোকসানের শঙ্কায় ব্যবসায়ীরা
বিজিএপিএমইএ পরিচালক পদে চট্টগ্রাম অঞ্চলে জসিম-ইকবাল সমর্থিত প্যানেলের জয় বিজিএপিএমইএ পরিচালক পদে চট্টগ্রাম অঞ্চলে জসিম-ইকবাল সমর্থিত প্যানেলের জয়
আর এসএস থ্রেডের আবদুন নুর বিজিএপিএমইএ’র পরিচালক নির্বাচিত আর এসএস থ্রেডের আবদুন নুর বিজিএপিএমইএ’র পরিচালক নির্বাচিত
ইভ্যালিসহ ১০ ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ইভ্যালিসহ ১০ ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়
দেশে ১১ সাংবাদিক নেতার ব্যাংক হিসাব তলব নিয়ে ব্যাপক আলোচনা দেশে ১১ সাংবাদিক নেতার ব্যাংক হিসাব তলব নিয়ে ব্যাপক আলোচনা
পাটের দাম মণ প্রতি কমেছে ২০০-৫০০ টাকা : হতাশ কৃষক পাটের দাম মণ প্রতি কমেছে ২০০-৫০০ টাকা : হতাশ কৃষক
অর্থনৈতিক সংকটে আটকে গেছে আফগানিস্তান অর্থনৈতিক সংকটে আটকে গেছে আফগানিস্তান

আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)